আমরা ছোট-বড় সকলেই কিসমিস ফলের সাথে পরিচিত কিসমিস মূলত আঙ্গুর ফল শুকিয়ে বানানো হয় ।ফলটি দেখতে ছোট হলে ও এর কার্যকারিতা এবং উপকারিতার পরিধি অনেক বেশি ।
এক পরিসংখ্যানে জানা যায় প্রতি ১০০ গ্রাম কিসমিসে রয়েছে এনার্জি ৩০৪ কিলোক্যালরি ,কার্বোহাইড্রেট ৭৪.৬ গ্রাম, ডায়েটরি ফাইবার ১.১ গ্রাম, ফ্যাট ০.৩ গ্রাম , প্রোটিন ১.৮ গ্রাম ,ক্যালসিয়াম ৮৭ মিলিগ্রাম , আয়রন ৭.৭ মিলিগ্রাম ,পটাসিয়াম ৭৮ মিলিগ্রাম ও সোডিয়াম ২০.৪ মিলিগ্রাম । যা আমাদের শরীরের জন্য খুব উপকারী ।

  • আজ আমরা কিসমিসের উপকারিতা  সম্পর্কে জানব ..

মস্তিষ্কের জন্য : অনেকেই হয়তো জানেন না কিসমিসের থাকা  বোরন  মস্তিষ্কের জন্য খুবই উপকারী মস্তিষ্ককে কার্যকর করতে সহায়তা করে ফলে যেকোনো কাজ করতে মনোযোগী করে ।কিসমিস শিশুদের মেধা বিকাশে সহায়তা করে।

রোগ প্রতিরোধ : কিসমিসে ভিটামিন এবং খনিজ গুলির সাথে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং পলিফেনল গুলির মত অন্যান্য যৌগ গুলির মতো প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান রয়েছে এগুলো আমাদের সিষ্টেমে  ফ্রিরেডিকাল  গুলোর সাথে লড়াই করে এগুলোকে  স্থিতিশীল করতে এবং তাদের শ্বেত রক্তকণিকা সহ আমাদের কোষগুলিকে অক্সিডেটিভ ক্ষতির কারণ হতে রোধ করে যা আমাদের ইমিউন সিস্টেম গঠন করে।

ওজন বাড়াতে : কিসমিসের প্রচুর ফ্রুক্টোজ ও  গ্লুকোজ  থাকে ।তাই এটি ওজন বাড়াতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে যদি সঠিক নিয়মে ওজন বাড়াতে চান তবে এখন  থেকে কিসমিস খেতে পারেন।

দৃষ্টি শক্তি : রক্তে ভিটামিন এ , এ বিটা ক্যারোটিন এবং এ ক্যারোটিনয়েড থাকে ,কিসমিস এন্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করতে পারে , যা চোখের ফ্রি- রেডিকল দূর করতে সক্ষম . কিসমিস খেলে সহজে শরীরে বয়সের ছাপ পড়ে না , দৃষ্টি শক্তি হ্রাস ও চোখে ছানি পড়ে না , পাশাপাশি পেশী শক্তি হ্রাস পায় না । কিসমিস চোখের জন্য খুব উপকারী।

ডায়বেটিস প্রতিরোধ : অবাক করা বিষয় হলো এই যে , কিসমিস প্রোস্টপ্রান্ডিয়াল ইন্সুলিন রেসপন্সকে নামিয়ে দেয় যার মানে দাঁড়ায় কিসমিস খেলে ডিনারের পর শরীরের ইন্সুলিনের হঠাৎ বৃদ্ধি বা ঘাটতি দেখা দেয় তা প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে ।

কিসমিস শরীর সুস্থ্ রাখে এবং কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রন রাখে  কিসমিসে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এবং খনিজ আছে ।আছে প্রাকৃতিক এন্টিঅক্সিডেন্ট ।যা সহজে রোগ মুক্তির কারণ ।আর আছে প্রচুর পরিমাণ আয়রন, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং ফাইবার।

পরবর্তীতে আরও স্বাস্থ বিষয়ক তথ্য আমাদের সাথেই থাকুন .
করোনার এই মুহূর্তে সবাই সুস্থ থাকুন নিরাপদে থাকুন ।

ধন্যবাদ .. 

1 Comments

Post a Comment

Previous Post Next Post